আর্কাইভ  শুক্রবার ● ২১ জানুয়ারী ২০২২ ● ৮ মাঘ ১৪২৮
আর্কাইভ   শুক্রবার ● ২১ জানুয়ারী ২০২২

দিনাজপুর সদর হাসপাতাল থেকে শিশু চুরি

মঙ্গলবার, ৪ জানুয়ারী ২০২২, সকাল ০৯:৫৯

দিনাজপুর: দিনাজপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভূমিষ্ঠ হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পর হাসপাতালের গাইনি বিভাগ থেকে একটি নবজাতক (শিশুকন্যা) চুরির ঘটনা ঘটেছে। শিশুটি উদ্ধারে পুলিশ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

সোমবার সকাল পৌন ৯টার দিকে জেনারেল হাসপাতালে নবজাতক ওই শিশুটির জন্ম হয়। জন্ম নেয়া শিশুকন্যার মা প্রসূতি জাহেদা বেগম (৩৬) দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার মাহাদানী গ্রামের আব্দুল লতিফের স্ত্রী। এটি তার চতুর্থ সন্তান। এর আগে তার গর্ভে জন্ম নেওয়া তিনটিই কন্যা সন্তান।

প্রসূতি জাহেদা বেগমের পরিবার জানায়, তার প্রসব ব্যথা উঠলে গত রবিবার জাহেদাকে দিনাজপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সোমবার সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে জাহেদা বেগম একটি কন্যাসন্তান জন্ম দেন। এরপর দুপুর দেড়টার পর হাসপাতাল থেকেই শিশুটি চুরি হয়ে যায়। 
প্রসূতি জাহেদা বেগম (৩৬) জানান, সোমবার সকালে একটি শিশুকন্যা জন্ম দেন। দুপুরের পর তার প্রস্রাবের চাপ হলে নবজাতক শিশুকন্যাকে তার বোন হাজেরা বেগমের কাছে রাখে। এসময় অজ্ঞাত এক নারী হাজেরাকে বলে- অসুস্থ বোনকে প্রস্রাব করাতে নিয়ে যান। শিশুকন্যাকে আমাকে দেন। হাজেরা বেগম সরল বিশ্বাসে নবজাতক শিশুকন্যাকে ওই নারীর কাছে দিয়ে প্রসূতি বোনকে প্রস্রাব করাতে টয়লেটে নিয়ে যান। টয়লেট থেকে ফিরে এসে দেখেন ওই অজ্ঞাত নারীটি নবজাতক শিশুকে নিয়ে উধাও হয়ে গেছে। প্রসূতি মাতা জাহেদা বেগম তার নবজাতক শিশু কন্যাকে ফিরিয়ে দিতে চিৎকার করে কান্নাকাটি শুরু করলে নবজাতক শিশুকন্যা চুরির ঘটনা ফাঁস হয়ে পড়ে। এরপর অনেক খোঁজাখুঁজি করেও সন্তানটি না পাওয়ার পর বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়। 

এব্যাপারে দিনাজপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. পারভেজ সোহেল রানা জানান, বিষয়টি জানার পর পুলিশকে জানানো হয়েছে। পুলিশের বিভিন্ন টিম শিশুটিকে উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে। হাসপাতালের সিসি ফুটেজ থেকে শনাক্তের চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে জানান তিনি। 

দিনাজপুর কোতোয়ালি থানার ওসি মোজাফ্ফর হোসেন জানান, সোমবার সন্ধ্যায় শিশু চুরির বিষয়টি মৌখিকভাবে জানার পর শিশুটিকে উদ্ধারে জোর তৎপরতা শুরু করা হয়েছে। 

মন্তব্য করুন


Link copied